• Sunrise At: 5:49 AM
  • Sunset At: 5:48 PM
[email protected] +88 01975539999

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় কলা অনুষদের অন্তর্গত আরবি বিভাগের গবেষক, তা‘লিমে যিকর মানিকগঞ্জ দরবার শরীফের পীর ছাহিব কিবলা, চিশতিয়া সাবিরিয়া তরীক্বার বোনাফাইড খলিফা হযরত মাওলানা মুফতি ড. মুহাম্মাদ মনজুরুল ইসলাম ছিদ্দিকী তাঁর রচিত অভিসর্ন্দভ ‘‘ইমাম আ‘যম আবূ হানীফা (রাহ.): ফিকহ শাস্ত্রে তাঁর অবদান’ এর জন্য ‘পিএইচ.ডি’ ডিগ্রি লাভ করেছেন। তাঁর গবেষণা তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন দেশ বরেণ্য প্রখ্যাত  ‘আলিম, বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ আরবী ভাষা বিশেষজ্ঞ, ডবল স্বর্নপদক প্রাপ্ত, বহু ভাষাবিদ, বহু গ্রন্থ রচিয়তা সদ্যপ্রয়াত মরহুম প্রফেসর আ.ন.ম. আব্দুল মান্নান খান ছাহিব, প্রফেসর ও সাবেক চেয়ারম্যান,    

আরবী বিভাগ, ঢাকা বিশ্বাবিদ্যালয়। এটি তাঁর সুদীর্ঘ নয় বছরের গবেষণা। এ কিতাবে তিনি ইমাম আবূ হানীফা (রাহ.) এঁর জীবনী, ইমাম আবূ হানীফা (রাহ.) এঁর বংশ পরম্পরা, সরাসরি সাহাবায়ে কিরাম থেকে ‘ইলম অর্জন ও তাবি‘ঈ হওয়ার প্রমাণ, জ্ঞানার্জনের তৎপরতা, ইমাম আবূ হানীফা (রাহ.) এঁর প্রতি ওস্তাদের বিশেষ ভালবাসা, তীক্ষ্ণ মেধা, প্রখর বুদ্ধিমত্তা ও দূরদর্শিতা, বিশেষ কিছু গুনাবলী, প্রখ্যাত ওস্তাদগণের পরিচয়, গবেষণা ও ফিকহ শাস্ত্রে বুৎপত্তি অর্জন, কর্ম জীবন, অধ্যাপনা জীবন, ইমাম আবূ হানীফা (রাহ.) অত্যন্ত উচ্চপর্যায়ের যুগশ্রেষ্ঠ আল্লাহর অলী ছিলেন, ফিকহ হানাফী: উৎপত্তি ও বিকাশ, বিশ্বে হানাফী মাযহাবের বিস্তৃতি, ফিকহ শাস্ত্রে ইমাম আবূ হানীফা (রাহ.) এঁর অবদান, তৎকালীন সমাজ ব্যবস্থা এবং বিশ্বে ফিকহ হানাফীর প্রভাব ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। এটি তাঁর পি.এইচ.ডি গবেষণার থিসিস। হযরত মাওলানা মুফতি ড. মুহাম্মাদ মনজুরুল ইসলাম ছিদ্দিকী ছাহিব ইতোপূর্বে বাংলাদেশ মানিকগঞ্জ ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা থেকে ১৯৮২ সালে আলিম ও ১৯৮৫ সালে ফাযিল সম্পন্ন করেন। তারপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৮ সালে বি.এ.(অনার্স) (এরাবিক) ও ১৯৯২ সালে এম.এ.(এরাবিক) পরীক্ষায় যথাক্রমে ১০ম ও ২য় স্থান অধিকার করে মেরিট লিষ্টে স্থান 

করে নেন।পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে সেন্ট্রাল ল’ কলেজ থেকে এল.এল.বি ও মুহাম্মাদপুর আলিয়া মাদ্রাসা, ঢাকা থেকে এম.এম.(আল হাদীস) ডিগ্রী লাভ করেন। প্রাকৃতিক প্রজ্ঞাসম্পন্ন (Natural Talent) ও তাঁর পিতার বিশেষ দু‘আর ফলে তিনি লেখাপড়ায় খুব বেশী সময় দিতে হতো না। তিনি ১৯৯৪ সালে এরাবিক ক্ল্যাসিকে এম.ফিল.করেন। তারপর তাঁর পিতার নির্দেশে ১৯৯৮ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পিএইচ.ডি গবেষক হিসেবে যোগদান করেন। আরবী সাহিত্যে (Arabic Literature) জ্ঞানার্জনের পাশাপাশি ড.মুহাম্মাদ মনজুরুল ইসলাম ছিদ্দিকী ছাহিব আল্লাহপাকের মেহেরবানীতে চিকিৎসা বিজ্ঞান (Medical Science), মহাকাশ বিজ্ঞান (Space Science), দর্শণ (Philosophy), মনোবিজ্ঞান (Psychology), পদার্থবিদ্যা (Physics), রসায়ন (Chemistry), আইন বিজ্ঞান (Jurisprudence) হানাফী ফিকহশাস্ত্র (Science of hanafi jurisprudence) ইত্যাদি বিষয়ে গভীর জ্ঞানের অধীকারী। তিনি ‘আল-ক্বু-রআনুল কারীমের বঙ্গানুবাদ ’ ‘তা‘লিমে যিকর’ ‘দৃষ্টি যখন বাংলাদেশ’ ‘সু্স্থ থাকুন’ ‘আল তাতফীক’ ‘তা‘লিমুল ক্বু-রআন’ ও ‘নাম নীলিমা’ সহ বেশ কয়েকটি গবেষণামূলক গ্রন্থ রচনা করেছেন। তিনি মানিকগঞ্জ জেলার সিদ্দিকনগরের অন্যতম মুসলিম বিজ্ঞানী পীরে কামিল ও মুকাম্মিল অধ্যাপক হযরত মাওলানা মো: আযহারুল ইসলাম ছিদ্দিকী ছাহিব (রাহ.) এঁর জ্যেষ্ঠ পুত্র ও প্রধান খলীফা। ১২ ডিসেম্বর ২০০৯ ইং তারিখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৫ তম সমাবর্তনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় চ্যান্সেলর মো: জিলুর রহমান তাঁকে আনুষ্ঠনিকভাবে পিএইচ.ডি ডিগ্রী (মূল সনদ) প্রদান করেন।

সম্পূর্ণ পত্রিকা পড়ার জন্য ‘এখানে’ ক্লিক করুন।

 

Designed by Mohd Nassir Uddin